জাপানীজ কটন চিজ কেক

জাপানীজ কটন চিজ কেক

জাপানীজ কটন চিজ কেক

রেসিপি ও ছবিঃ আমেনা আনার

উপকরণঃ ডিম ৩ টি (নরমাল)
তরল দুধ ১২০ মি:লি:
ক্রিম চিজ Philadelphia চিজ ২৪০ গ্রাম (আমি স্প্রেড চীজ ক্রিম দিয়ে করেছি)
বেকিং পাউডার ১ চা চামচ
চিনি ১/২ কাপ ও পাউডার চিনি ১/২ কাপ
ভেনিলা এসেন্স ১ চা চামচ
all-purpose flour ১ কাপ
কর্ণর্স্টাচ ২ টে চামচ
লেবুর রস ১ চা চামচ
রাউন্ড প্যান ৮ inch

পদ্ধতিঃ দুইটি ধাপে এই কেক তৈরি করতে হবে)

১ম ধাপঃ প্রথমে কেক মোল্ড তৈরি করে মোল্ডের ভিতরের চারপাশ ও তলায় সামান্য বাটার/ঘি ব্রাশ করে নিয়ে বাটার পেপার/পার্সিমন পেপার দিয়ে সেট করে নিন। এবার দুইটি বাটিতে কুসুম আর সাদা অংশ আলাদা করে নিয়ে ডিমের সাদা অংশে ভেনিলা এসেন্স ইলেকট্রিক বিটার দিয়ে মিডিয়াম স্পিডে বিট করুন। সাদা অংশ যখন ফোমের পর্যায়ে আসবে তখন পাউডার সুগার দিয়ে আবার বিট করুন যতক্ষণ না মসৃণ ফোম হচ্ছে। বাটিকে উপুড় করে দেখলে ও পড়বে না আবার ওভার বীট ও করা যাবে না।

২য় ধাপেঃ একটি বাটিতে ক্রিম চীজ আর দুধ নিয়ে পাতিলে গরম পানি করে নিয়ে তার উপর বাটিটি বসিয়ে দিন। এবার হ্যান্ড বিটার দিয়ে মিশিয়ে নিন। চীজ, দুধ ভালভাবে মিশানো হলে চিনি, ডিমের হলুদ অংশ দিয়ে ভাল ভাবে বিট করে লেবুর রস দিয়ে মিশিয়ে এক পাশে রাখুন। এবার চালনিতে ময়দা, কর্ণর্স্টাচ, বেকিং পাউডার নিয়ে চেলে নিন। এবার করে রাখা চীজের মিশ্রণে অল্প অল্প ময়দা দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন যেন কোন দলা না থাকে। মিশ্রণটা স্মুথ হয়।

জাপানীজ কটন চিজ কেক

এবার এই মিশ্রণের সাথে ডিমের সাদা বিট করা অংশ অল্প অল্প দিয়ে হালকা ভাবে উপর নিচু করে হ্যান্ড বিটার দিয়ে মিশিয়ে যেন সাদা ফোম ভেসে না থাকে। মিশানো হয়ে গেলে মোল্ডে ঢেলে উপর নিচে দুইবার হাল্কা ভাবে ঝাকা দিয়ে সেট করে নিন। এবার ওভেনকে আগে প্রি-হিটেড করে রাখতে হবে ১০ মিনিট। বেকিং ট্রেতে এক দেড কাপ মত গরম পানি দিয়ে কেকের মোল্ডটি রাখুন। ওভেনে সেট করে দিন সাবধানে। এখন ১৮০ ডিগ্রী তাপমাত্রায় ১ ঘন্টা বেকিং করতে হবে। টুথপিক দিয়ে চেক করে দেখুন হয়েছে কিনা। আরো পাঁচ মিনিট বেক করুন যদি মনে হয় বেইক করতে হবে। ১০-১৫ মিনিট ওভেনেই অফ করে রেখে দিন। কেক পুরাপুরি ঠান্ডা করে কেটে পরিবেশন করুন মজাদার জাপানীজ কটন চিজ কেক।

রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা একটি ওয়েব ম্যাগাজিন। রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা, ঘুড়ি এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। “রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা“ হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় গল্প ও কবিতার ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমাদের ওয়েবসাইটটি দেশের গন্ডি পেরিয়ে ভারত, নেপাল, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের কাছে যেতে সক্ষম হয়েছে।