দুই রংয়ের রসগোল্লা

দুই রংয়ের রসগোল্লা

দুই রংয়ের রসগোল্লা

রেসিপি ও ছবিঃ হেলেনা পারভিন রুমা

উপকরণঃ

** ছানা তৈরির নিয়ম জানতে এখানে ক্লিক করুন

মিষ্টি তৈরীর উপকরণঃ দুধের ছানা ১ লিটার ১ কাপের একটু কম হবে
ময়দা ১/২ চা চামচ
চিনি ১/২ চা চামচ
হলুদ রংয়ের ফুড কালার এক চিমটি

সিরার উপকরণঃ চিনি ১ কাপ
পানি ৪ কাপ
এলাচ (আস্ত) ৩ টি
গোলাপজল ১ টে চামচ (না দিলেও চলবে)

মিষ্টি তৈরীর নিয়মঃ প্রথমে প্লেটে ছানা ছড়িয়ে ফ্যানের নিচে ৭-৮ মিনিট রাখুন। যাতে পানি থাকলে শুকিয়ে যায়। এবার ছানার সাথে ময়দা এবং চিনি মিশিয়ে ভালো করে ১২-১৫ মিনিট মথতে নিন। ছানা যখন প্লেট থেকে ছেড়ে আসবে তখন ছানা দুই ভাগ করে। একটা ভাগ বড় হবে এবং আরেকটি ভাগ ছোট। ছোট ভাগে হলুদ রংয়ের ফুড কলার মিশিয়ে ছোট ছোট গোল্লা তৈরী করে নিন। এবার সাদা ছানা থেকেও গোল্লা তৈরী করুন ঠিক হলুদ রংয়ের যে কয়টা গোল্লা হয়েছে।

দুই রংয়ের রসগোল্লা

এবার সাদা ছানার ভিতর হলুদ রংয়ের ছানা দিয়ে গোল গোল বল তৈরী করে নিন। এভাবে সবগুলো বল তৈরী নিন। এক কাপ ছানা থেকে মাঝারি সাইজের ৭-৮ টা মিষ্টি হবে। বলগুলো সমান করে গোল করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে ফাটল না থাকে, ফাটল থাকলে মিষ্টি ভেঙ্গে যাবে। এবার পাতিলে চিনি, পানি ও এলাচ একসাথে নিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। যখন বলক আসবে তখন একে একে সবগুলো ছানার বল সিরার মধ্যে দিয়ে ঢেকে দিন। ৫ মিনিট পর পর ঢাকনা খুলে একটু নেড়ে দিন। এভাবে ১৫-২০ মিনিট জ্বাল দেওয়ার পর গোলাপজল দিয়ে একটু নেড়ে নামিয়ে সিরায় ৫-৬ ঘন্টার জন্য রাখুন। ঠান্ডা করে কেটে পরিবেশন করুন মজার এই দুই রংয়ের রসগোল্লা।

নোটসঃ
* ছানা তৈরী করার পর ভালো ভাবে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। যাতে লেবুর গন্ধ না আসে।
* ছানা লেবুর রস ছাড়া ভিনেগার এবং টক দই দিয়েও তৈরী করা যায়।
* ছানায় পানি থাকলে মিষ্টি শক্ত হয়ে যাবে তাই ছানার পানি ভালো ভাবে শুকিয়ে নিন।
* ছানা করার সময় দুধ কাঠের অথবা প্লাস্টিকের চামচ দিয়ে নাড়বেন, স্টিলের চামচ ব্যবহার করলে ছানা শক্ত হয়ে যায়।
* ১ লিটার দুধের ছানায় মাঝারি সাইজের ৭-৮ টা মিষ্টি হবে।

রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা একটি ওয়েব ম্যাগাজিন। রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা, ঘুড়ি এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। “রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা“ হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় গল্প ও কবিতার ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমাদের ওয়েবসাইটটি দেশের গন্ডি পেরিয়ে ভারত, নেপাল, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের কাছে যেতে সক্ষম হয়েছে।