বাংলাদেশি ক্ল্যাসিক রসগোল্লা

বাংলাদেশি ক্ল্যাসিক রসগোল্লা

বাংলাদেশি ক্ল্যাসিক রসগোল্লা

রেসিপি ও ছবিঃ ফারহানা শারমিন তৃষা

ঘরে বসেই এই মজাদার মিষ্টি স্বাস্থ্যকর উপায়ে তৈরি করে ফেলুন মিষ্টির দোকানের মত পারফেক্ট ভাবে নরম তুলতুলে রসগোল্লা। আমি যেভাবে তৈরি করেছি ঠিক সেই মাপ অনুযায়ী রেসিপি দিলাম।

প্রথম ধাপঃ

উপকরণঃ ছানা ১ লিটার ফুল ক্রিম তরল দুধে ৩০০ মি লি টক দই মিশিয়ে ছানা তৈরি করে নিন।
ময়দা ১ টে চামচ
চিনি ২ টে চামচ

তৈরি করার নিয়ম (প্রথম ধাপ): প্রথমেই ছানা তৈরি করে নিন। খেয়াল রাখতে হবে যেন দুধ ফুল ফ্যাট হয় আর ভালো মানের হয়। আমি ১ লিটার ফুল ফ্যাট তরল দুধ জ্বাল দিয়ে ৩০০ মিঃলিঃ ও ফুল ফ্যাট টক দই দিয়ে ছানা তৈরি করে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিয়ে পানি ঝরিয়ে ৩০ মিনিটের জন্য রেখে দিন। টক দই দিয়ে ছানা তৈরি করলে তা নরম এবং মিষ্টির স্বাদও ভালো হয় বিশেষ করে রসগোল্লার। এবার এই ছানাকে ভালোভাবে মথে নিয়ে এর সাথে ময়দা মিশিয়ে নিন। ময়দা জোরে জোরে মিশানো যাবে না। হালকা হাতে মেখে নিলেই হবে। এই মিশ্রণে চিনি দিয়ে ময়ান তৈরি করুন। কোনভাবেই ময়ান শক্ত করা যাবে না তাহলে মিষ্টি ফেটে যাবে। ক্লাসিক রসগোল্লার ময়ান ৪/৫ মিনিট মথে নিলেই হয়ে যায়। স্পঞ্জ রসগোল্লার মিষ্টি ১০ মিনিটের মতো মথে নিলে স্পঞ্জি ভাব আসে। ১৫ মিনিটের জন্য মিশ্রণকে ঢেকে রাখুন। ১৫ মিনিট পর হাতে সামান্য ঘি মাখিয়ে নিয়ে মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট বলের শেইপ করে মিষ্টি বানিয়ে নিন। খেয়াল রাখতে হবে যে মিষ্টি যেন ফেটে না যায়। আমার এই পরিমাপ থেকে মিডিয়াম সাইজের ১২ টি মিষ্টি হয়েছিলো।

দ্বিতীয় ধাপঃ

উপকরণঃ চিনি ২ কাপ
পানি ৫ কাপ
লেবুর রস সামান্য
চিনি পরিমাণ মতো

তৈরির নিয়ম (দ্বিতীয় ধাপ): এবার পাতিল ২ কাপ চিনি, পানি ৫ কাপ এবং সামান্য লেবুর রস দিয়ে সিরা তৈরি করে নিন। সিরার পাতিল এমন হবে যেন মিষ্টি ফুলে উঠলে তাতে জায়গার অভাবে ফেটে না যায়। অর্থাৎ খুব বড় বা ছোট পাতিল হবে না। চিনি গলে গেলে এবং এক বলক আসলে পাতিলে ২ টি এলাচি ও বলগুলো দিয়ে দিন। সব বলগুলো একবারে দিয়ে ঢেকে প্রথমে ১৫ মিনিটের জন্য ফুল আঁচে জ্বাল দিতে হবে। তারপর ১/২ ঘন্টার জন্য একদম মিডিয়াম আঁচে বসিয়ে রেখে দিন। এতে মিষ্টির ভেতর সিরা খুব ভালো ঢুকে এবং মিষ্টি নরম হবে। মিষ্টি হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করে এলাচিগুলো তুলে ফেলে দিন এবং ৬ ঘণ্টার জন্য ঢেকে রেখে দিন। তবেই বাংলাদেশি ক্ল্যাসিক রসগোল্লা পারফেক্ট ভাবে তৈরি হবে।

রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা একটি ওয়েব ম্যাগাজিন। রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা, ঘুড়ি এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। “রেসিপি.ঘুড়ি.বাংলা“ হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় গল্প ও কবিতার ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে অন্যতম। আমাদের ওয়েবসাইটটি দেশের গন্ডি পেরিয়ে ভারত, নেপাল, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের মানুষের কাছে যেতে সক্ষম হয়েছে।